মেনু নির্বাচন করুন

২৬ অক্টোবর, ২০২১ রোজ মঙ্গলবার সকাল ১০:৩০ ঘটিকায় এ বিভাগের মাসিক সমন্বয় সভা পরিচালক, বিভাগীয় সমাজসেবা কার্যালয়, সিলেট মহোদয়ের সভাপতিত্বে তাঁর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে। ২৬ অক্টোবর ২০২১ রোজ মঙ্গলবার বেলা ০২:০০ ঘটিকায় চাইল্ড সেনসিটিভ সোস্যাল প্রটেকশন ইন বাংলাদেশ (সিএসপিবি) প্রকল্পের শিশু সুরক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়ন বিষয়ক বিভাগীয় সমন্বয় সভা পরিচালক, বিভাগীয় সমাজসেবা কার্যালয়, সিলেট মহোদয়ের সভাপতিত্বে তাঁর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে । জাতিসংঘের এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার অর্জন করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বিভাগীয় সমাজসেবা কার্যালয়, সিলেট এর পক্ষ থেকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। মুজিব বর্ষে বাংলার মাটিতে একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না : মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা 


বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ভাতা


বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ভাতা

১৯৯৮-৯৯ অর্থ বছরে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন সমাজসেবা অধিদফতররের মাধ্যমে বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলাদের ভাতা কর্মসূচি প্রবর্তন করা হয়। ঐ অর্থ বছরে ৪ লক্ষ ৩ হাজার ১১০ জনকে এককালীন মাসিক ১০০ টাকা হারে  ভাতা প্রদান করা হয়। ২০০৩-০৪ অর্থ বছরে এ কর্মসূচিটি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করা হয়। 

বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ভাতা কর্মসূচি বাস্তবায়নে অধিকতর গতিশীলতা আনয়নের জন্য বর্তমান সরকার পুনরায় ২০১০-১১ অর্থ বছরে এ কর্মসূচি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করে। বর্তমান সরকারের উদ্যোগে প্রবর্তিত এ কর্মসূচি সমাজসেবা অধিদফতর সফলভাবে বাস্তবায়ন করছে। এ কর্মসূচির আওতায় ২০২১-২২ অর্থ বছরে ২৪ লক্ষ ৭৫ হাজার জন ভাতাভোগীর জন্য জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা হারে মোট ১৪৯৫.৪০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। 

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় হতে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত হওয়ার পর এ কর্মসূচিতে অধিকতর স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ এবং সর্বমহলে গ্রহণযোগ্য করে তোলার জন্য বিগত ৬ বছরে যে সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে তা হলো, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রণীত বাস্তবায়ন নীতিমালা সংশোধন করে যুগোপযোগীকরণ, উপকারভোগী নির্বাচনে স্থানীয় মাননীয় সংসদ সদস্যসহ  অন্যান্য জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্তকরণ, ডাটাবেইজ প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ। এ ছাড়া ১০ টাকার বিনিময়ে সকল ভাতাভোগীর নিজ নামে ব্যাংক হিসাব খুলে ভাতার অর্থ পরিশোধ করা হচ্ছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছর থেকে ভাতাভোগীদের অনলাইন মাধ্যমে G2P বা গভর্মেন্ট টু পারসন পদ্ধতিতে ভাতা প্রদান চালু করা হয়েছে। 

 

বাস্তবায়নকারী দফতর

সমাজসেবা অধিদফতর

 

কার্যক্রম শুরুর বছর

১৯৯৮-৯৯ অর্থবছর

 

কর্মসূচির লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

১.বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও সামাজিক নিরাপত্তা বিধান;

২. পরিবার ও সমাজে তাঁদের মর্যাদা বৃদ্ধি;

৩. আর্থিক অনুদানের মাধ্যমে তাঁদের মনোবল জোরদার করা;

৪. চিকিৎসা সহায়তা ও পুষ্টি সরবরাহ বৃদ্ধিতে আর্থিক সহায়তা প্রদান

 

সংজ্ঞা:

বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ভাতা প্রদান কর্মসূচি আওতায় -‘বিধবা’ বলতে তাদেরকেই বুঝানো হবে যাদের

স্বামী মৃত; ‘স্বামী নিগৃহীতা’ বলতে তাঁদেরকেই বুঝানো হবে যাঁরা স্বামী কর্তৃক তালাকপ্রাপ্তা বা অন্য যে কোন কারণে

অন্ততঃ দু’বছর যাবৎ স্বামীর সংগে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন বা একত্রে বসবাস করেন না ।

 

প্রার্থী নির্বাচনের মানদন্ড:

(ক) নাগরিকত্ব: প্রার্থীকে অবশ্যই বাংলাদেশের স্থায়ী নাগরিক হতে হবে।

(খ) বয়স: বয়স অবস্যই ১৮ (আঠার) বছরের ঊর্ধ্বে হতে হবে। তবে সর্বোচ্চ বয়স্ক মহিলাকে অগ্রাধিকার প্রদান করতে হবে।

(গ) স্বাস্থ্যগত অবস্থা: যিনি শারীরিকভাবে অক্ষম অর্থাৎ সম্পূর্ণরূপে কর্মক্ষমতাহীন তাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে হবে।

(ঘ) আর্থ-সামাজিক অবস্থা :

(১) আর্থিক অবস্থার ক্ষেত্রে: নিঃস্ব, উদ্বাস্ত্ত ও ভূমিহীনকে ক্রমানুসারে অগ্রাধিকার দিতে হবে।

(২) সামাজিক অবস্থার ক্ষেত্রে: নিঃসমত্মান, পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন ব্যক্তিদেরকে ক্রমানুসারে অগ্রাধিকার দিতে হবে।

(ঙ)  ভূমির মালিকানা: ভূমিহীন প্রার্থীকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে বসতবাড়ী ব্যতিত কোন ব্যক্তির জমির পরিমাণ

০.৫ একর বা তার কম হলে তিনি ভূমিহীন বলে গণ্য হবেন।

 

ভাতা প্রাপকের যোগ্যতা ও শর্তাবলী:

১.     সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে;

২.     জন্ম নিবন্ধন/জাতীয় পরিচিতি নম্বর থাকতে হবে;

৩.    বয়ঃবৃদ্ধা অসহায় ও দুঃস্থ বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতা মহিলাকে অগ্রাধিকার প্রদান করা হবে;

৪.    যিনি দুঃস্থ, অসহায়, প্রায় ভূমিহীন, বিধবা বা স্বামী নিগৃহীতা এবং যার ১৬ বছর বয়সের নীচে ২টি সন্তন রয়েছে, তিনি ভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন;

৫.    দুঃস্থ, দরিদ্র, বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতাদের মধ্যে যারা প্রতিবন্ধী ও অসুস্থ তারা ভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন;

৬.     প্রার্থীর বার্ষিক গড় আয়ঃ অনূর্ধ ১২,০০০ (বার হাজার) টাকা হতে হবে;

৭.     বাছাই কমিটি কর্তৃক নির্বাচিত হতে হবে।

ক্রঃ নং

জেলার নাম

উপজেলার নাম

বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ভাতা

২০-২১ অর্থ বছরের মোট বরাদ্দকৃত উপকারভোগীর সংখ্যা

সারেন্ডার

প্রকৃত ভাতা ভোগীর সংখ্যা

প্রেরিত পে-রোলের সংখ্যা

সিলেট













সদর

২২৭১

২২৭১

২২৭১

বিয়ানীবাজার

৩০৯৯

৩০৯৯

৩০৯৯

ফেঞ্চুগঞ্চ

৮৮৩

৮৮৩

৮৮৩

জকিগঞ্জ

৫৮৬১

৫৮৬১

৫৮৬১

কোম্পানীগঞ্জ

৪২৬৩

৪২৬৩

৪২৬৩

গোলাপগঞ্জ

২৯১৭

২৯১৭

২৯১৭

বালাগঞ্জ

১৪১১

১৪১১

১৪১১

ওসমানীগঞ্জ

১৮৭৬

১৮৭৬

১৮৭৬

দক্ষিণ সুরমা

২৯৩৫

২৯৩৫

২৯৩৫

১০

বিশ্বনাথ

১৮৮৯

১৮৮৯

১৮৮৯

১১

কানাইঘাট

৬৭৮৮

৬৭৮৮

৬৭৮৮

১২

জৈন্তাপুর

৪১০৯

৪১০৯

৪১০৯

১৩

গোয়াইনঘাট

৬৮২৯

৬৮২৯

৬৮২৯

১৪

ইউসিডি


সিলেট জেলার মোট

৪৫১৩১

৪৫১৩১

৪৫১৩১

সুনামগঞ্জ












সদর

২৫১১

২৫১১

২৫১১

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ

২৬৮৩

২৬৮৩

২৬৮৩

দোয়ারাবাজর

২০১৩

২০১৩

২০০৩

ছাতক

৩৭২৭

৩৭২৭

৩৬৮২

জগন্নাথপুর

২২৪৩

২২৪৩

২২৪৩

দিরাই

২৯০০

২৯০০

২৯০০

শাল্লা

১২০৬

১২০৬

১২০৬

ধর্মপাশা

২৯২৯

২৯২৯

২৯২৯

তাহিরপুর

২০৩৭

২০৩৭

২০৩৫

১০

জামালগঞ্জ

১৫০২

১৫০২

১৫০২

১১

বিশ্বম্ভরপুর

১৫৩৩

১৫৩৩

১৫৩৩

১২

ইউসিডি

৩৫০

৩৫০

৩৫০

সুনামগঞ্জ জেলার মোট

২৫৬৩৪

২৫৬৩৪

২৫৫৭৭

হবিগঞ্জ










মাধবপুর

৩৪৬০

৩৪৬০

৩৪৫৮

হবিগঞ্জ সদর

২০০৪

২০০৪

২০০৪

চুনারুঘাট

৩২৪০

১৭২

৩০৬৮

৩০৬৮

বাহুবল

২১৬৭

২১৬৩

২১৬৩

বানিয়াচং

৪৩২৫

৪৩২৫

৪৩২৫

লাখাই

১৭৯৫

২৭

১৭৬৮

১৭৬৮

আজমেরীগঞ্জ

১৭৬৮

১৭৬৮

১৭৬৮

নবীগঞ্জ

৪২৬৪

৩৪

৪২৩০

৪২৩০

শায়েস্তাগঞ্জ

৮১৪

৮১৪

৮১৪

১০

ইউসিডি

৩৪০

৩৪০

৩৪০

 হবিগঞ্জ জেলার মোট

২৪১৭৭

২৩৭

২৩৯৪০

২৩৯৩৮

মৌলভীবাজার








সদর

৩১৫৪

৩১৫৪

৩১৪৪

শ্রীমঙ্গল

২৪৬৪

২৪৬৪

২৪৬৪

রাজনগর

২৬২৪

২৬২৪

২৬২৪

কুলাউড়া

৩৬৮৬

৩৬৮৬

৩৬৮৬

জুড়ী

৩৮৯৯

৩৮৯৯

৩৮৯৯

বড়লেখা

৩০১৬

৩০১৬

৩০১৬

কমলগঞ্জ

২৯৭৫

২৯৭৫

২৯৭৫

ইউসিডি

৩৮৩

৩৮৩

৩৮৩

মৌলভীবাজার জেলার মোট 

২২২০১

২২২০১

২২১৯১